যেসব কারণে কাযা-কাফফারা উভয়টা ওয়াজিব হয় এবং ফিদিয়া আদায়ের নিয়ম -মুফতি ইবরাহীম আনোয়ারী

0
744
ইখবার টোয়েন্টিফোর ডটকম | নিজস্ব প্রতিনিধি
১. ইচ্ছাকৃত আহার বা সহবাস করলে : রমজানে রোজা রেখে দিনের বেলা ইচ্ছাকৃত আহার বা সহবাস করলে রোযা ভেংগে যাবে এবং কাযা কাফফারা উভয়টি ওয়াজিব হবে।
২. জানা সত্বেও সুবহে সাদিকের সময় সহবাস করলে: যদি কোনো ব্যক্তি জানা সত্বেও সুবহে সাদিকের পর পর্যন্ত সহবাসে লিপ্ত থাকে তাহলে উভয়ের উপর কাযা-কাফফারা ওয়াজিব হবে।
৩. রোযাবস্থায় ধুমপান করলে: যদি রমজানে রোজাবস্থায় ধুমপান পান করে তাহলে তার উপর সে রোজার কাযা ও কাফফারা উভয়টা ওয়াজিব হবে।
৪. জোরপূর্বক সহবাস করলে: যদি কোনো স্বামী স্ত্রীকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে জোরপূর্বক সহবাস করে তাহলে উভয়ের রোজা নষ্ট হয়ে যাবে। তবে যার উপর জবরদস্তি করা হয়েছে তার উপর শুধু কাযা ওয়াজিব হবে, কাফফারা ওয়াজিব হবেনা। জবরদস্তি কারীর উপর কাযা কাফফারা উভয়টা ওয়াজিব।
রোযার ফিদিয়া সংক্রান্ত মাসায়েল :
রোযা না রেখে ফিদিয়া দেয়া : যে অসুস্থ ব্যক্তি পরবর্তীতে সুস্থ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে, এমন রোগীর জন্য মারাত্মক অসুস্থ অবস্থায় রোযা ছেড়ে দেওয়ার অবকাশ রয়েছে। কিন্তু সে পরবর্তীতে উক্ত রোজা সমুহের কাযা আদায় করতে হবে, কেননা কাযার উপর সক্ষম থাকাবস্থায় ফিদিয়া আদায় করা শুদ্ধ হবেনা।
অসুস্থ ব্যক্তির রোজার ফিদিয়া : যে ব্যক্তি দীর্ঘ মেয়াদী রোগে আক্রান্ত হওয়ার পর কারণে রোযা রাখতে অক্ষম এবং ভবিষ্যতে সুস্থ হওয়ারও সম্ভাবনা না থাকে, এমন ব্যক্তির জন্য রোজার পরিবরতে পৌনে দিই সের গম বা আটা কিংবা তার মুল্য ফিদিয়া দিতে হবে।
ওয়ারিশগনের ফিদিয়া আদায় : কোনো ব্যক্তির জিম্মায় যদি কাযা রোজা থাকে, যা তার জীবদ্দশায় আদায় করা হয়নি। এতে মৃত ব্যক্তি যদি ওসিয়ত করে গিয়ে থাকে তাহলে তার পরিত্যাক্ত সম্পত্তির এক তৃতীয়াংশ থেকে তার ওয়ারিশগণ নিয়মানুযায়ী এই ফিদিয়া আদায় করতে হবে। আর ওসিয়ত না করে থাকলেও যদি ওয়ারিশগণ নিজেদের সম্পদ থেকে ফিদিয়া আদায় করে দেন তবুও আশা করা যায় যে, মহান আল্লাহ তায়ালা তা কবুল করেবেন, এবং এর উছিলায় মৃত ব্যক্তিকে ক্ষমা করে দিবেন।
ফিদিয়া আদায়ের নিয়ম : যদি কোনো ব্যক্তির পুরা রমজানের রোযার ফিদিয়া স্বরূপ শুধু একজন প্রাপ্ত বয়স্ক ফকির/ মিসকিনকে খানা বা টাকা দিতে চায়,দিতে পারবে। আর যদি ভিন্ন ভিন্নভাবে ফিদিয়া আদায় করতে চায়, তাহলেও আদাত করতে পারবে। অতএব উভয় সুরতে তার ফিদিয়া আদায় হয়ে যাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here