ভোলায় আজকে যে ঘটনা ঘটল, তা খুবই ন্যাক্কারজনক : মুফতি ফয়জুল্লাহ

0
485

ডেস্ক রিপোর্ট : ভোলার বোরহান উদ্দীন উপজেলায় ফেসবুকে হিন্দু যুবক কর্তৃক আল্লাহ ও মহানবী হজরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে নিয়ে অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্যের প্রতিবাদে মুসলিম জনতার বিক্ষোভ সমাবেশে পুলিশি হামলা ও চার মুসল্লির শাহাদাতের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মুফতী ফয়জুল্লাহ।

রোববার বিকালে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ভোলায় আজকে যে ঘটনা ঘটল, তা খুবই ন্যাক্কারজনক। পুলিশ মানুষের নিরাপত্তার জন্য নিয়োজিত, কিন্তু সেই পুলিশের হাতেই চার চারটি তাজাপ্রাণ ঝরে পড়ল! কোন ভাষায় এই বর্বরোচিত হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাবো, তা জানা নেই।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলমানের দেশ। ইসলাম, আল্লাহ তায়ালা এবং রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এ দেশের ৯০ ভাগ মুসলমানের হৃদয়ের স্পন্দন। মহান আল্লাহকে নিয়ে, নবিজিকে নিয়ে, ইসলামকে নিয়ে কেউ কটূক্তি করলে তাঁদের কলিজায় আঘাত লাগে। কটূক্তিকারীর সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে সোচ্চার হওয়া প্রতিটি মুসলমানের ইমানি দাবি। এই দাবি পূরণে ভোলার তাওহিদী জনতা একত্রিত হয়েছিল। কিন্তু পুলিশ সেই জমায়েতে গুলি চালিয়ে কলঙ্কজনক একটি অধ্যায়ের জন্ম দিল।

মুফতী ফয়জুল্লাহ বলেন, যাদের ইন্ধনে এই হামলা হয়েছে এবং পুলিশের যে সব সদস্য এমন বর্বরতা চালিয়েছে অবিলম্বে তাদেরকে বিচারের আওতায় এনে উপযুক্ত শাস্তি দিতে হবে। পাশাপাশি যে হিন্দু লোক আল্লাহ ও নবিজিকে নিয়ে কটূক্তি করেছে তাঁরও সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

তিনি আরো বলেন, দ্রুত সময়ের মধ্যে এদের শাস্তি নিশ্চিত না করলে দেশের তাওহিদি জনতা একযোগে আবারও গর্জে উঠবে। তখন এ জনরোষ সরকার কিংবা প্রশাসন কারো জন্যই ভালো হবে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here